রবিবার , ২৫ জুন ২০২৩ | ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০
  1. অন্যান্য
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ইসলাম
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. জাতীয়
  8. তথ্যপ্রযুক্তি
  9. বিনোদন
  10. মতামত
  11. রাজনীতি
  12. লক্ষ্মীপুর
  13. লাইফ স্টাইল
  14. শিক্ষাঙ্গন
  15. সংগঠন সংবাদ

পশ্চিমাঞ্চল থেকে ঢাকায় কোরবানির পশু পরিবহনের ব্যবস্থা রেলওয়ের

প্রতিবেদক
ডেস্ক এডিটর
জুন ২৫, ২০২৩ ৭:০২ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম জোন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহী জেলা থেকে কম খরচে  পশু ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু, আলাদাভাবে শুধুমাত্র গবাদি পশু পরিবহনের জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা তাদের নেই। তাই চলতি বছরের ২৪ থেকে ২৬ জুন পর্যন্ত বিদ্যমান ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনের পৃথক ওয়াগনে গবাদি পশু পরিবহন করা হবে। জোনের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার জানান, টানা তৃতীয়বারের মতো কৃষক ও ব্যবসায়ীদের চাহিদার ভিত্তিতে ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির পশু পরিবহন করা হবে।
ট্রেনটি বিকেল ৪টায় রোহনপুর রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। এটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীসহ ৬ টি স্টেশনে গরু বোঝাই করে গভীর রাতে ঢাকায় পৌঁছাবে। ২৪ থেকে ২৬ জুন পর্যন্ত এই ট্রেন সার্ভিস চালু থাকবে এবং চাহিদা সাপেক্ষে একদিন বাড়ানো হবে।
অসীম কুমার তালুকদার বলেন, একটি ব্রডগেজ ওয়াগনে ২০টি গবাদি পশু ১১ হাজার ৮৩০ টাকা ব্যয়ে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া যাবে। গবাদি পশু (২০টি গবাদি পশুর পাল) বোঝাইকৃত ওয়াগনের জন্য প্রতি কিলোমিটার ভাড়া ২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। রাজশাহী থেকে ঢাকা পর্যন্ত ৩৪৩ কিলোমিটার দীর্ঘ এই পথে গরুর পাল বোঝাই ওয়াগনের জন্য খরচ হবে ৬ হাজার ৮৬০ টাকা। এছাড়া রাজশাহী থেকে ঢাকায় ২০টি গবাদি পশু পরিবহনের জন্য ১ হাজার ৩৭৬ টাকা সারচার্জ, ২ হাজার ৫৭৪ টাকা টার্মিনাল ভাড়া ও অন্যান্য খরচসহ সর্বমোট ১১ হাজার ৮৩০ টাকা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, অংশীজনদের পরামর্শের ভিত্তিতে প্রান্তিক গরুর খামার মালিকদের সহজে এবং কম খরচে কোরবানির পশু ঢাকায় নিয়ে যেতে উৎসাহিত করতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে শুরু করে বিশেষ ট্রেনটি কাকনহাট, রাজশাহী, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমসহ ছয়টি রেলস্টেশনে থামবে। রেলওয়ের এই  ওয়াগনগুলিতে পর্যাপ্ত জানালা রয়েছে, যার ভেতর দিয়ে বাতাস যাওয়া-আসা করতে পারে। তাছাড়া দিনের বেলায় অতিরিক্ত গরমে যাতে পরিবহনকৃত পশুগুলো অসুস্থ না হয়ে পড়ে, সেজন্য রাতে এই ট্রেন চলবে। গবাদি পশু এবং গবাদি পশু ব্যবসায়ীরাও যাতে একই ওয়াগনে তাদের গন্তব্যে যেতে পারে, সে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি জানান, ট্রেনে করে কোরবানির পশু পরিবহন করায় ব্যবসায়ীদের সময় ও অর্থ দুটোই সাশ্রয় হবে। পশুপালকারীদের চাহিদার ভিত্তিতে দেশের পশ্চিমাঞ্চল থেকে ঢাকায় গবাদিপশু পরিবহনের সুবিধার্থেই এই বিশেষ ট্রেনের ব্যাবস্থা করা হয়েছে বলেও  তিনি উল্লেখ করেন।

সর্বশেষ - রাজনীতি