লক্ষ্মীপুরে কিস্তি আদায়ে বেপরোয়া এনজিও কর্মীরা : ইউএনও’র হুশিয়ারি

লক্ষ্মীপুর সময় ডেস্কঃ

করোনা মহামারির মধ্যেও লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে কিস্তির টাকা আদায়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে এনজিও সংস্থাগুলো। যেখানে কোন রকম খেয়ে পরে বেঁচে থাকা কষ্টকর হয়ে পড়ছে মানুষের সেখানে গ্রাহকদেরকে নানাভাবে কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে চাপ দিচ্ছে তারা। মুঠোফোনেও কল করে কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে বলছে তারা।

হয়রানীর শিকার গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) রায়পুর ইউএনও সাবরীন চৌধুরী ১৬ এনজিও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরী সভা করেন। এসময় গ্রাহকদেরকে কিস্তির টাকা পরিশোধে চাপ না দেয়ার জন্য এনজিও কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান করেন।

তিনি বলেন, করোনার এই মহামারী পরিস্থিতি থাকা পর্যন্ত কোনো গ্রাহককে কিস্তির টাকার জন্য কোনো প্রকার চাপ দেয়া যাবে না এবং ফোন দিয়ে কিস্তির টাকার জন্য হয়রানি করা যাবে না। যে সকল গ্রাহকের কিস্তির টাকা দেয়ার সামর্থ আছে তারা এনজিওর অফিসে গিয়ে কিস্তির টাকা জমা দিবে। আর যারা পারবে না তাদের কোনো প্রকার চাপ দেয়া যাবে না। যাতে গ্রাহকরা কোনো প্রকার হয়রানীর শিকার না হয় সেজন্য সকল এলাকায় মাইকিং করারও নির্দেশ প্রদান করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, কোনো এনজিও কর্মকর্তা যদি এ নির্দেশ মোতাবেক কাজ না করেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই জাতীয় আরো খবর

আপনার মতামত জানাতে পারেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.