লক্ষ্মীপুরে কিশোরীর অর্ধনগ্ন মরদেহ উদ্ধার, ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

লক্ষ্মীপুর সময় ডেস্কঃ

  1. লক্ষ্মীপুরে নবম শ্রেণী পড়ুয়া ‘হিরামনি’ নামের এক কিশোরীর অর্ধনগ্ন মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ (১২ জুন, শুক্রবার) বিকেলে সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড পশ্চিম গোপীনাথপুর আজিম উদ্দিন পাটোয়ারী বাড়ি (তার নিজবাড়ি) থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। একা পেয়ে ধর্ষণের পর তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

কে বা কারা এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত তা জানা যায়নি। তবে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত ‘হিরামনি’ ওই এলাকার মোঃ হারুনুর রশিদ এর বড় মেয়ে ও স্থানীয় পালেরহাট পাবলিক হাই স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানা যায়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ক্যান্সারে আক্রান্ত পিতার চিকিৎসার জন্য কিশোরীটির মা তাকে তার নানার বাড়ী হাসনাবাদে রেখে ঢাকায় অবস্থান করেন। আগামীকাল অর্থাৎ শনিবার ওই কিশোরীর ঢাকায় যাবার কথা থাকায় আজ (শুক্রবার) সকাল ১০টার দিকে তার বড় মামা তাকে তাদের নিজ বাড়ীতে রেখে যান। দুপুরে পার্শ্ববর্তী বাড়ীতে থাকা কিশোরীটির দাদী খুরশিদা বেগম ভাত খেতে তাকে ডাকতে এসে মেয়েটিকে অর্ধনগ্ন ও মৃত অবস্থায় বিছানায় পড়ে থাকতে দেখে শোর চিৎকার শুরু করেন।

খবর পেয়ে লক্ষ্মীপুর সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিকালে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মীর শাহআলম, পালেরহাট পাবলিক হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ বেলায়েত হোসেন খান, নিহতের মামা শাহজাহান ড্রাইভার, দাদী খুরশিদা বেগম ও এলাকাবাসী জড়িতদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মোসলেহ উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ধর্ষণের পর মেয়েটিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্তকরে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

এই জাতীয় আরো খবর

আপনার মতামত জানাতে পারেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.